বুধবার ১০ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ২৬শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

শেখ হাসিনার কাছ থেকে শিখুন: পাকিস্তানি পত্রিকা

নিউজটি শেয়ার করুন

অনলাইন ডেস্ক:

বাংলাদেশের উল্লেখযোগ্য অর্থনৈতিক অগ্রগতি ও উন্নয়নের ভূয়সী প্রশংসা করেছে পাকিস্তানের প্রভাবশালী পত্রিকা ‘দ্য এক্সপ্রেস ট্রিবিউন’। ‘টেক অ্যাওয়েস ফ্রম বাংলাদেশ’স লিডারশিপ’ শিরোনামে মঙ্গলবার পত্রিকাটি একটি নিবন্ধ প্রকাশ করে। এতে দেশটির প্রখাত কলামিস্ট ‘সাহেবজাদা রিয়াজ নূর’ তার দেশের কর্তৃপক্ষকে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছ থেকে শিক্ষা গ্রহণের পরামর্শ দিয়েছেন।

কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতকোত্তর সাহেবজাদা রিয়াজ নূর পাকিস্তানের খাইবার পাখতুন খোয়া প্রদেশের মুখ্য সচিব ছিলেন।

নিবন্ধে বলা হয়, বছরের পর বছর ধরে বাংলাদেশ উল্লেখযোগ্য অর্থনৈতিক পরিবর্তনের অভিজ্ঞতা অর্জন করেছে। এই উন্নয়নের কৃতিত্ব দেশটির নেতৃত্বকে দেওয়া যেতে পারে।

 

সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পদ্মা সেতু উদ্বোধন করেছেন, এই সেতুকে দেশের ‘গর্ব ও সামর্থ্যের প্রতীক’ আখ্যা দিয়েছেন নিবন্ধটির লেখক।

তিনি বলেন, শেখ হাসিনা ৯০ এর দশক থেকে বাংলাদেশের অর্থনৈতিক সমস্যা এবং পরিকল্পনার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট। তিনি রাজনৈতিক প্রভাবের সঙ্গে অর্থনৈতিক নীতির ভারসাম্যের দিকে মনোযোগ দিয়েছেন।

নিবন্ধে আরও বলা হয়, শেখ হাসিনা তার বাবার সমাজতান্ত্রিক এজেন্ডা থেকে বাজারভিত্তিক পুঁজিবাদী প্রবৃদ্ধির দিকে মনোনিবেশ করেন। তিনি অন্যান্য এশিয়ান দেশগুলো থেকে শিখেছেন, যাদের অর্থনৈতিক সাফল্যের ভিত্তি চারটি। এই ভিত্তিগুলো হলো- রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা, সামাজিক উন্নয়ন, রফতানিকেন্দ্রিক প্রবৃদ্ধির সঙ্গে বাণিজ্য নীতি উদারীকরণ এবং আর্থিক সংযম।

নিবন্ধে সাহেবজাদা রিয়াজ লেখেন, একটি সম্মেলনে এক অর্থনীতিবিদ যখন বাণিজ্য উদারীকরণের সুবিধা সম্পর্কে বলছিলেন, তখন শেখ হাসিনা তাকে থামিয়ে দিয়ে বলেন, “বাণিজ্য উদারীকরণের বিষয়ে আমাকে বোঝাতে হবে না। আমি যখন যুগোস্লাভিয়া সীমান্তবর্তী ইতালির শহর ত্রিয়েস্তে আমার পদার্থবিদ ও পরমাণু বিজ্ঞানী স্বামীর সঙ্গে থাকতাম, তখন দেখেছি, সীমান্ত সপ্তাহে তিনবার খোলা থাকছে এবং দুই পাশ থেকে মানুষ যাতায়াত করছে। পণ্য কিনছে এবং আবার ফিরে যাচ্ছে।”

এতে এটিই প্রমাণ হয় যে, রাজনীতিবিদরা সাধারণত যে সব বিষয়ে আকৃষ্ট হন, তার পরিবর্তে শেখ হাসিনা অর্থনীতির দিকে আন্তরিকভাবে মনোনিবেশ করেছিলেন।

“বেসামরিক সরকারগুলোর ঘন ঘন পা পিছলে পড়া এবং সরকারগুলোর সামান্য বৈধতা বা অবৈধতার অভিজ্ঞতা পেয়েছে বাংলাদেশ। দেশটির গণতান্ত্রিক ইতিহাস মোটেই নিষ্কলঙ্ক নয় এবং এখানকার সরকার দুর্নীতি ও অদক্ষতার বিষয়ে জনসাধারণের সমালোচনা বারবার এড়িয়ে গেছে। তবে বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এক দূরদর্শী এবং দৃঢ় প্রত্যয় ধারণ করেছেন।”

ওই নিবন্ধে বলা হয়, “প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মনে করেছেন, অর্থনৈতিক অগ্রগতিই দেশের দারিদ্র্য বিমোচনের একমাত্র উপায়।”

বিরোধীদেরকে বলপূর্বক নিয়ন্ত্রণের অভিযোগ থাকলেও ১৫ বছরেরও বেশি সময় ধরে টেকসই প্রবৃদ্ধির মাধ্যমে বাংলাদেশ বিশ্বের অন্যতম দ্রুত বর্ধনশীল অর্থনৈতিক শক্তিতে পরিণত হয়েছে বলেও নিবন্ধে লেখা হয়।

এতে আরও বলা হয়, পাকিস্তানের তুলনায় ১৯৭০ সালে বাংলাদেশ ৭৫ শতাংশ দরিদ্র ছিল, কিন্তু এখন পাকিস্তানের চেয়ে ৪৫ শতাংশ ধনী। পাকিস্তানের ১ হাজার ৫৪৩ ডলারের তুলনায় বাংলাদেশে এখন মাথাপিছু আয় ২ হাজার ২২৭ ডলার। বাংলাদেশে ২০২২ সালে মোট দেশজ উৎপাদন (জিডিপি) ৪১১ বিলিয়ন, পাকিস্তানে তা ৩৪৭ বিলিয়ন ডলার। বাংলাদেশে বার্ষিক মূল্যস্ফীতির হার ৬ শতাংশ, পাকিস্তানে আগে যা ছিল ১২-১৫ শতাংশ। পাকিস্তানে বর্তমানে মূল্যস্ফীতি বেড়ে ২১ শতাংশ হয়েছে। ভবিষ্যতে এই হার আরও বাড়ার আশঙ্কা করা হচ্ছে।

পাকিস্তানে রাজনৈতিক দলগুলো এখনও নিজস্ব স্বার্থ হাসিলে ব্যস্ত বলে প্রবন্ধে উল্লেখ করেন সাহেবজাদা রিয়াজ নূর।

তিনি লেখেন, গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় বারবার কারসাজির ফলে শক্তিশালী, গণতান্ত্রিক এবং পরিবারতন্ত্র বহির্ভূত রাস্তায় রাজনৈতিক দলগুলোর পথচলা বাধাগ্রস্ত হয়েছে। এটা অনস্বীকার্য যে, রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা, আইনের শাসন, শক্তিশালী বেসামরিক প্রতিষ্ঠান এবং অংশগ্রহণমূলক গণতন্ত্রের সঙ্গে অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি ঘনিষ্ঠভাবে জড়িত।

বাংলাদেশের উদাহরণ অনুসরণ করে পাকিস্তানি নেতৃত্বকে অবশ্যই জাতীয় লক্ষ্য হিসেবে অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি অর্জনের পথ অনুসরণ করতে হবে বলে প্রবন্ধে উল্লেখ করা হয়।

এতে বলা হয়, বাংলাদেশের অভিজ্ঞতা থেকে অনেক কিছু শিখতে পারে পাকিস্তানের নেতৃত্ব। তবে প্রধান পদক্ষেপটি হওয়া উচিত অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির প্রতি শেখ হাসিনার অগ্রাধিকারের বিষয়টি অনুসরণ করা, যা প্রতিরক্ষা এবং গণতন্ত্র উভয়ের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। সূত্র: দ্য এক্সপ্রেস ট্রিবিউন

এই বিভাগের আরও খবর

চারঘাটে অগ্নিকান্ডে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি ইউএনও সহায়তা প্রদান

নিউজটি শেয়ার করুন

নিউজটি শেয়ার করুন    চারঘাট(রাজশাহী) প্রতিনিধিঃ   রাজশাহীর চারঘাট উপজেলার বামনদিঘী গ্রামে বৈদ্যুতিক সটসার্কিটে একটি বাড়ি পুড়ে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়। জানা যায় আজ মঙ্গলবার ভোর

শরীয়তপুরে দুই গ্রুপের সংঘর্ষ, নিহত ১

নিউজটি শেয়ার করুন

নিউজটি শেয়ার করুনঅনলাইন ডেস্ক: শরীয়তপুরের পালং মডেল থানায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে দুই গ্রুপের সংঘর্ষে একজন নিহত হয়েছে। এ ঘটনায় আরও অন্তত ২০ জন আহত

বাংলাদেশ কি ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে চলে যাচ্ছে?

নিউজটি শেয়ার করুন

নিউজটি শেয়ার করুনঅনলাইন ডেস্ক: শারীরিকভাবে দূরে থাকলেও মানসিকভাবে বাংলাদেশ থেকে দূরে থাকতে পারি না। মাঝেমধ্যে যে দূরে থাকার চেষ্টা করিনি তা নয়, তবে শেষমেষ পারিনি।

সরকারের বিদায়ের সময় ঘনিয়ে এসেছে: ফখরুল

নিউজটি শেয়ার করুন

নিউজটি শেয়ার করুনঅনলাইন ডেস্ক: বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, নির্যাতন-নিপীড়ন ও নেতাকর্মীদের ওপর হামলা এবং গ্রেফতার করে ক্ষমতায় থাকা যাবে না। আওয়ামী সরকারের

শ্রীলঙ্কায় এক ধাক্কায় বিদ্যুতের দাম বাড়ল ৭৫ শতাংশ

নিউজটি শেয়ার করুন

নিউজটি শেয়ার করুনঅনলাইন ডেস্ক: অর্থনৈতিক ও জ্বালানি সংকটে জর্জরিত শ্রীলঙ্কায় বিদ্যুতের দাম এক ধাক্কায় বেড়েছে ৭৫ শতাংশ। আগামীকাল (১০ আগস্ট) থেকে বিদ্যুতের নতুন এ মূল্য

রাজশাহীতে পালিত হচ্ছে পবিত্র আশুরা

নিউজটি শেয়ার করুন

নিউজটি শেয়ার করুননিজস্ব প্রতিবেদক: রাজশাহীতে ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে যথাযথ মর্যাদায় পালিত হচ্ছে পবিত্র আশুরা। মঙ্গলবার (৯ আগস্ট) সকালে বিভিন্ন ধর্মীয় সংগঠন দিনটি পালনে তাজিয়া

%d bloggers like this: