শনিবার ১৩ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ২৯শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম:
অস্ত্রোপচারের পর ভেন্টিলেটর সাপোর্টে সালমান রুশদি, অবস্থা আশঙ্কাজনক যুদ্ধের মাঝেই ইউক্রেনে চালু হচ্ছে ম্যাকডোনাল্ড’স? মূল্যস্ফীতির ভয়ঙ্কর প্রভাব, ব্রিটিশদের প্রকৃত আয়ে শত বছরের সর্বোচ্চ পতনের শঙ্কা বাংলাদেশের তরুণদের ১০ দশমিক ৬ শতাংশ বেকার : আইএলও উন্নয়নের নৌকা এখন শ্রীলঙ্কার পথে : জি এম কাদের দেশে টিকে আছে মাত্র ২০০ হাতি প্রধানমন্ত্রীর জাদুকরী উন্নয়ন এগিয়ে যাচ্ছে দেশ ড.হাছান মাহমুদ দুর্গাপুরে পা-গোলি ফুটবল টুর্ণামেন্টের উদ্বোধন সড়ক দূর্ঘটনায় আহত ভাদুকে দেখতে রামেক হাসপাতালে জেলা পরিষদ প্রশাসক বাগমারায় সৈয়দ ডা. মোদাচ্ছের আলীর সাথে উপজেলা প্রশাসনের মতবিনিময়

বাগমারায় বন্যা ও বৃষ্টিতে বানভাসিদের জীবন বিপর্যস্ত 

নিউজটি শেয়ার করুন

 

বাগমারা প্রতিনিধি

রাজশাহীর বাগমারায় দ্বিতীয় দফায় টানা বর্ষণ ও উজান থেকে নেমে আসা পানিতে ৭টি ইউনিয়নের ফসল ও নি¤œ এলাকার বাড়ি-ঘর তলিয়ে গেছে। অব্যাহত গত ৪ দিনের প্রবল বৃষ্টি আর বন্যার পানিতে জন জীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে।

গত এক মাস পর দ্বিতীয় দফায় বন্যায় এলাকার ব্যাপক হারে ক্ষতির পরিমান বেড়ে গেছে। গ্রামে গ্রামে বাড়ি-ঘর তলিয়ে মানুষ গৃহবন্দী রয়েছে। ভেঙ্গে পড়েছে মাটির ঘর-বাড়ি। পানি থেকে রক্ষার্থে উঁচু বাঁধ-বাসায় আশ্রয় নিয়েছে। এক দিকে নীচে পানি উপর দিকে বৃষ্টি নামে এতে যেন মরার উপর খাড়ার ঘা হয়ে দাঁড়িয়েছে। এমতবস্থায় গত ৫ দিনেও সরকারী ভাবে কোন সাহায্য সহযোগীতা বানভাসীদের মিলেনি বলে ভুক্তভোগীরা দাবি করেছেন। তবে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শরিফ আহম্মেদ বলেন, প্রতিনিয়ত বানভাসিদের খোঁজ-খবর নেয়া হচ্ছে এবং স্থানীয় সংসদ ইঞ্জিনিয়ার এনামুল হকের দেয়া ১৭ মেট্রিক টন চাল বানভাসিদের মধ্যে বিতরণের প্রস্ততি চলছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, টানা বর্ষণের সাথে উজানের পানি মিলে পানির তোড়ে ফের এলাকায় দেখা দেয় প্রবল বন্যা। এছাড়া দ্বীপপুর ইউনিয়নের জুলাপাড়ার মরাঘাটির নিকটের ভাঙ্গা বেড়ী বাঁধ দিয়ে উপজেলার উত্তর এলাকায় ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। বন্যা আর কয়েক দিনের অতি বৃষ্টিতে নতুন নতুন এলাকায় পানি প্রবেশ করেছে। এতে করে উপজেলার কাচারী কোয়ালীপাড়া, ইউনিয়ন, দ্বীপপুর, বাসুপাড়া, ঝিকরাসহ ৫টি ইউনিয়নে নতুন নতুন করে প্লাবিত হয়। অতি বন্যায় রোপা-আমন ও আউশ ধান, পানবরজ, এবং সবজি ক্ষেতসহ প্রায় ৫ কোটি টাকার ফসলের ক্ষতি হয়েছে।

গতকাল সরেজমিনে গিয়ে বড়বিহানালী ইউনিয়নের বড়কয়া, সিন্দুরলংগ, বেড়াবাড়ি এলাকার শতশত পরিবারের মানুষ পানিবন্দির অবস্থা চোখে পড়ে। বড়কয়া গ্রামে বর্ষার পানি জমে ১৫/১৬ মাটির বাড়ি ভেঙ্গে পড়েছে। ওই ইউনিয়নের ইউপি সদস্য আবুল হোসেন জানান, বন্যা ও অতি বৃষ্টিতে অধিক ক্ষতি গ্রামের মাটির বাড়িগুলোর মধ্যে বড়কয়া গ্রামের মৃত আফছার আলীর বিধবা স্ত্রী ফাতেমা বেওয়া, মৃত তমেল আলীর বিধাব কন্যা জয়নব, আশরাফুল ইসলাম, জয়নব, ও হমিরকুৎসা ইউনিয়নের আলোক নগর গ্রামের ভ্যান চালক মৃত সাহেবুল্লার ছেলে ভ্যানচালক মকলেছুর রহমানের মাটির বাড়ি ভেঙ্গে পড়েছে। একই ভাবে শিতল কুমার, রন্জন, আবু বাক্কার ও বেড়াবাড়ি গ্রামের জাহাঙ্গীর, চঞ্চল, রহিদুলের বাড়ি ক্ষতি হয়েছে। ক্ষতি গ্রস্তরা বাড়ি ছেড়ে অনেকে আত্মীয়-স্বজন ও প্রতিবেশীদের বাড়ি কিংবা উঁচু কোন স্থানে আশ্রয় নিয়ে অনাহারে অদ্ধাহারে জীবন যাপন করছেন। ছোট কয়া গ্রামের গ্রাম পুলিশ জোনাব আলী বলেন, গত দু’ দিন আগে তার মাটির বাড়ি ভেঙ্গে পড়েছে। বানভাসিরা বিবি ও ছেলে-মেয়েদের নিয়ে বৃষ্টি-বাদলে কষ্টে জীবন যাপন করছেন। একদিকে বৃষ্টি অন্য দিকে বন্যা এতে মরার মরার উপর খাড়ার ঘা হয়ে পড়েছে। এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শরিফ আহম্মেদ বলেন, বন্যায় কোন এলাকার মানুষ অভুক্ত নেই। প্রতিনিয়ত বানভাসিদের খোঁজ-খবর নেয়া হচ্ছে এবং স্থানীয় সংসদ ইঞ্জিনিয়ার এনামুল হকের দেয়া ১৭ মেট্রিক টন চাল বানভাসিদের মধ্যে বিতরণের প্রস্ততি চলছে। বানভাসিদের মধ্যে মঙ্গলবার উপজেলা প্রশাসনের পক্ষে পানি বিশুদ্ধকরণ ট্যাবলেট প্রদান করা হয়েছে। এছাড়া জেলা প্রশাসক মহোদয়ের নির্দেশনা মোতাবেক বানভাসিদের সহযোগীতা দেয়া হবে বলে জানান তিনি।

একই ভাবে উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মাসুদুর রহমান বলেন, চলতি বন্যায় উপজেলার বড়বিহানালী ও দ্বীপপুর ইউনিয়নের বেশী ক্ষতি হয়েছে। এছাড়া বাসুপাড়া, শ্রীপুরসহ কয়েকটি ইউনিয়নের ফসল ও বাড়ি ঘরের ক্ষতি হলেও দুরাবস্থা নেই। সরকারী ভাবে বানভাসিদের তালিকা চেয়ারম্যানদের কাছে জানতে চাওয়া হয়েছে। এছাড়া বিষয় গুলো নিয়ে তিনি উচ্চ মহলের সংগে কথা বলেছেন। শ্রীঘ্রই ব্যবস্থা গ্রহণ হবে বলে জানান তিনি। উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা রাজিবুর রহমান বলেন, এবারের বন্যায় কৃষকদের বেশ ফসলের ক্ষতি হয়েছে। ৩ শত হেক্টর জমির ধান ও ৭ হেক্টর জমির পান বরজ ক্ষতির একটি তালিকা করা হয়েছে। মঙ্গলবার তিনিসহ জেলা কৃষি উপপরিচালক কৃষিবিদ শামসুল হক এলাকা পরিদর্শন করেছেন। ক্ষতির এই সংখ্যা আরো অনেক বাড়বে বলে তিনি মন্তব্য করেন।

এই বিভাগের আরও খবর

অস্ত্রোপচারের পর ভেন্টিলেটর সাপোর্টে সালমান রুশদি, অবস্থা আশঙ্কাজনক

নিউজটি শেয়ার করুন

নিউজটি শেয়ার করুনঅনলাইন ডেস্ক: নিউ ইয়র্কে ছুরিকাঘাতের শিকার ব্রিটিশ ঔপন্যাসিক সালমান রুশদির শরীরে অস্ত্রোপচার সম্পন্ন হয়েছে। বর্তমানে তাকে ভেন্টিলেটর সাপোর্টে (কৃত্রিম উপায়ে শ্বাস-প্রশ্বাস নেওয়ার প্রক্রিয়া)

যুদ্ধের মাঝেই ইউক্রেনে চালু হচ্ছে ম্যাকডোনাল্ড’স?

নিউজটি শেয়ার করুন

নিউজটি শেয়ার করুনঅনলাইন ডেস্ক: যুদ্ধবিধ্বস্ত ইউক্রেনে আবারও রেস্তোরাঁ খোলার ঘোষণা দিয়েছে । গত ২৪ ফেব্রুয়ারি সাবেক সোভিয়েত ইউনিয়নের দেম্যাকডোনাল্ড’সশটিতে ‘বিশেষ সামরিক অভিযান’ শুরু করে রাশিয়া।

মূল্যস্ফীতির ভয়ঙ্কর প্রভাব, ব্রিটিশদের প্রকৃত আয়ে শত বছরের সর্বোচ্চ পতনের শঙ্কা

নিউজটি শেয়ার করুন

নিউজটি শেয়ার করুনঅনলাইন ডেস্ক: মূল্যস্ফীতির ভয়ঙ্কর প্রভাব পড়েছে যুক্তরাজ্যের অর্থনীতিতে। দেশটিতে লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে পণ্য ও সেবার দাম। কিন্তু ক্রমবর্ধমান এই মূল্যস্ফীতির সঙ্গে সংগতি রেখে

বাংলাদেশের তরুণদের ১০ দশমিক ৬ শতাংশ বেকার : আইএলও

নিউজটি শেয়ার করুন

নিউজটি শেয়ার করুনঅনলাইন ডেস্ক: আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থা (আইএলও) জানিয়েছে, ‘২০২০ সালের প্রথম দিকে সারাবিশ্বে স্বাস্থ্য জরুরি অবস্থা ঘোষণা করার পর থেকে বয়স্ক কর্মীদের তুলনায় ১৫

উন্নয়নের নৌকা এখন শ্রীলঙ্কার পথে : জি এম কাদের

নিউজটি শেয়ার করুন

নিউজটি শেয়ার করুনঅনলাইন ডেস্ক: জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও বিরোধীদলীয় উপনেতা গোলাম মোহাম্মদ (জি এম) কাদের এমপি বলেছেন, ‘ইউরোপ, আমেরিকার আর সিঙ্গাপুরের উদ্দেশে ছেড়ে দেওয়া উন্নয়নের

দেশে টিকে আছে মাত্র ২০০ হাতি

নিউজটি শেয়ার করুন

নিউজটি শেয়ার করুনঅনলাইন ডেস্ক: মানুষের হাতে যেভাবে হাতি নিধন হচ্ছে এবং হাতি সংরক্ষণে কর্তৃপক্ষ যেভাবে উদাসীন তা অব্যাহত থাকলে আগামী কয়েক বছর পর চিড়িয়াখানা ছাড়া

%d bloggers like this: