বৃহস্পতিবার ১লা ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ১৬ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

পটুয়াখালীতে তরমুজের নতুন জাত

নিউজটি শেয়ার করুন

অনলাইন ডেস্ক:

গ্রীষ্মের তপ্ত রোদে এক ফালি সুস্বাদু তরমুজ শীতল পরশ এনে দেয় মানুষের প্রাণে। বাঙালির পছন্দের রসালো এ ফলটি সবার কাছেই অতি প্রিয়। দেশের দক্ষিণ উপকূলে কৃষকের লাভজনক এ ফলটি চাষে প্রতি বছর প্রচুর অর্থ ব্যয় হয় বীজ সংগ্রহে। তরমুজের বীজ বিদেশ থেকে আমদানি করা হয়। এ বাবদ বছরে প্রায় ৪০০ কোটি টাকা ব্যয় হয়। আর এসব বীজ হাইব্রিড হওয়ায় উৎপাদিত ফল থেকে বীজ সংরক্ষণ করা সম্ভব হয় না।

এ ছাড়া প্রতি বছর আলাদা জাতের বীজ আমদানির ফলে এর অঙ্কুরোদ্গম, ফসল পরিচর্যা করতে কৃষককে বিভিন্ন সময় ক্ষতির মুখে পড়তে হয়। তবে দেশের এলাকাসহিষ্ণু তরমুজের নিজস্ব জাত উদ্ভাবনে কাজ করছে পটুয়াখালী আঞ্চলিক উদ্যানতত্ত্ব গবেষণা কেন্দ্র। ইতোমধ্যে লাল ও হলুদ রঙের দুটি জাতের সফলতাও মিলেছে তাদের গবেষণায়। মাঠ পর্যায়ে সফলতার পর দুটি জাতের অনুমোদনের অপেক্ষায় গবেষকরা। পটুয়াখালীর দুমকি উপজেলার লেবুখালী আঞ্চলিক উদ্যানতত্ত্ব গবেষণা কেন্দ্রের বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা মো. রেজাউল করিম বাংলাদেশ প্রতিদিনকে জানান, দেশের কৃষকের চাহিদা মেটাতে প্রতি বছর চীন, ভারত, জাপান ও মালয়েশিয়া থেকে তরমুজের হাইব্রিড বীজ সংগ্রহ করতে হয়।

বিভিন্ন কোম্পানি এসব হাইব্রিড বীজ নানা নামে সংগ্রহ করে। ফলে উৎপাদিত তরমুজের জাতের মান ও ধারাবাহিকতা থাকে না। এমন পরিস্থিতিতে বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউটের আঞ্চলিক উদ্যানতত্ত্ব গবেষণা কেন্দ্র, লেবুখালী চিন্তা করে কীভাবে তরমুজের নিজস্ব জাত উদ্ভাবন করা যায়। এজন্য ২০১৫ সাল থেকে গবেষণা চালানো হয়।

গবেষণার ফলে তরমুজের দুটি জাত উদ্ভাবন করা হয়। জাত দুটি ওপেন পলিনেটেড ভ্যারাইটি (পরাগায়ন) হওয়ায় কৃষক এ থেকে বীজ সংগ্রহ করতে পারবে এবং অঙ্কুরোদ্গম হবে। ফলে কৃষককে প্রতি বছর বীজ কিনতে হবে না। অনেক সময় আমদানি বীজ অঙ্কুরোদ্গম হয় না। তখন কৃষক ক্ষতির সম্মুখীন হন।

শুধু গ্রীষ্মকালেই নয়, এ জাত দুটি সারা বছর আবাদ করা যাবে। লেবুখালী আঞ্চলিক উদ্যানতত্ত্ব গবেষণা কেন্দ্রের প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. মো. ইদ্রিস আলী হাওলাদার জানান, উদ্ভাবিত হলুদ ও লাল তরমুজের বীজ পরাগায়ন হওয়ায় এর বীজ কৃষক সরাসরি সংরক্ষণ করতে পারবেন এবং বীজ থেকে সহজেই চারা বের হয়ে আসবে। বছরে তিনবার এ তরমুজ আবাদ করতে পারবেন কৃষক। ফলে কৃষক আর্থিকভাবে বেশি লাভবান হবেন। ভালো বীজের নিশ্চয়তা থাকবে।

প্রতি বছর বীজ আমদানিতে ব্যয় হয় প্রায় ৪০০ কোটি টাকা। জাত দুটি অনুমোদন পেলে বিদেশ থেকে আর বীজ আমদানি করতে হবে না।

এই বিভাগের আরও খবর

রাজশাহী বিভাগে পরিবহন ধর্মঘট শুরু, দুর্ভোগে মানুষ

নিউজটি শেয়ার করুন

নিউজটি শেয়ার করুনমহাসড়কে নছিমন–করিমন–ভটভটিসহ অবৈধ যান চলাচল বন্ধ করতে ১০ দফা দাবিতে আজ বৃহস্পতিবার ভোর ছয়টা থেকে রাজশাহী বিভাগে পরিবহন ধর্মঘট শুরু হয়েছে। এতে দুর্ভোগে

রাজশাহী কারাগারে হত্যা মামলার আসামির ফাঁসি কার্যকর

নিউজটি শেয়ার করুন

নিউজটি শেয়ার করুনরাজশাহী কেন্দ্রীয় কারাগারে হত্যা মামলার এক আসামির ফাঁসি কার্যকর করা হয়েছে।  বুধবার (৩০ নভেম্বর) দিবাগত রাত ১০টা ১ মিনিটে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত ওই আসামির ফাঁসি

‘গণসমাবেশ ঘিরে বিএনপি অপরাজনীতি করলে সমুচিত জবাব দেবে আ‘লীগ’

নিউজটি শেয়ার করুন

নিউজটি শেয়ার করুনআগামী ৩ ডিসেম্বর রাজশাহীতে বিভাগীয় গণসমাবেশ করতে যাচ্ছে বিএনপি। এই গণসমাবেশকে ঘিরে বিএনপি যদি কোনো ধরনের অশুভ তৎপরতা ও অপরাজনীতি করতে চায়, তাহলে

আজ শুরু হলো বিজয়ের মাস ডিসেম্বর

নিউজটি শেয়ার করুন

নিউজটি শেয়ার করুনআজ শুরু হলো বিজয়ের মাস ডিসেম্বর। ৩০ লাখ শহীদ আর ২ লাখ মা-বোনের সম্ভ্রমহানির বিনিময়ে অর্জিত স্বাধীনতার সাক্ষর এবারের বিজয়ের মাস নানা অনুষ্ঠানের

সারা দেশে ১৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত অভিযান চালাবে পুলিশ

নিউজটি শেয়ার করুন

নিউজটি শেয়ার করুন১ ডিসেম্বর থেকে ১৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত দেশজুড়ে অভিযান চালাতে নির্দেশনা দিয়েছে পুলিশ সদরদপ্তর। তবে পুলিশ সদরদপ্তর বলছে, এটি বিশেষ কোনো অভিযান নয়। আসন্ন

সমাজ থেকে সব বৈষম্য দূরীকরণে সরকার বদ্ধপরিকর : স্পিকার

নিউজটি শেয়ার করুন

নিউজটি শেয়ার করুনঅনলাইন ডেস্ক     সমাজ থেকে সব বৈষম্য দূরীকরণে সরকার বদ্ধপরিকর বলে জানিয়েছেন স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী। তিনি বলেন, সমাজের অনগ্রসর মানুষের